শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ১ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
ওসমানীনগরে প্রবাসীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি  » «   ইলিয়াস আলীর বাড়িতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা দুলু, মেয়র আরিফ  » «   দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   তিন মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিকদের জামিন  » «   একজন অভিজ্ঞ স্টাফ রিপোর্টার আবশ্যক  » «   গুজরাটে মোদী’র অগ্নিপরীক্ষা  » «   বিক্ষোভে উত্তাল ফিলিস্তিন ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে দুই ফিলিস্তিনি নিহত, আহত শতাধিক  » «   দেশের মানুষকে আন্ডারইস্টিমেট করবেন না: মির্জা ফখরুল  » «   ব্রিটিশ বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের ২০ বছর পূর্তি  » «   রেসিপিঃজলপাইয়ের টক-মিষ্টি আচার  » «   রসুন সবজি নাকি মসলা, জানতে আদালতে মামলা  » «   জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি বিশ্বজুড়ে প্রত্যাখ্যান  » «   পেট্রোলপাম্প ওনার্স এসোসিয়েশন সিলেটের বার্ষিক সাধারণ সভা  » «   ভারত থেকে কয়লা আমদানী পুনরায় চালু  » «   বড়লেখায় গৃহবধূ হত্যা: স্বামীসহ গ্রেফতার ২  » «  

সিলেটের নায়ক নাসির!

আবারও সেই মন্থর উইকেট। বল যেখানে গ্রিপ করল দারুণভাবে। তবে যত বাজে উইকেট, চিটাগং ভাইকিংসের ব্যাটিং হলো তার চেয়েও বাজে। সিলেট সিক্সার্সের তিন স্পিনারের বলে যেন তারা চোখে দেখল সর্ষে ফুল। সিলেট অধিনায়ক নাসির হোসেন স্পিন আক্রমণেও শিরোমনি।

বিপিএলে রবিবারের প্রথম ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসকে ১০ উইকেটে হারিয়ে সিলেট সিক্সার্স বাঁচিয়ে রাখল শেষ চারের আশা।

ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে নাসির নিলেন ৫ উইকেট। দারুণ সঙ্গ দিলেন নাবিল সামাদ ও শরিফউল্লাহ। চিটাগং গুটিয়ে গেল ৬৭ রানেই, যা এবারের বিপিএলে সর্বনিম্ন দলীয় স্কোর। সিলেট জিতেছে ১১.১ ওভারে।

আগের দিনও মিরপুর প্রথম ম্যাচে ধুঁকেছে ব্যাটসম্যানরা। রংপুর রাইডার্সের ৯৭ রান তাড়ায় শেষ ওভারে গিয়ে জিতেছে কুমিল্লা। এদিন উইকেট ছিল আলাদা, তবে আচরণ প্রায় একইরকম। আগের দিনের মত অতটা অসমান বাউন্স যদিও ছিল না, তবে ভীষণ মন্থর।

চিটাগংয়ের পথ হারানোর শুরু প্রথম ওভার থেকেই। শুরুটা যদিও হয়েছিল দারুণ। টস জিতে বোলিং নিয়ে শুরুর ওভার করতে এলেন নাসির। ম্যাচের প্রথম বলেই লুক রনকি মারলেন ছক্কা!

তবে পরের বলই অক্কা। লাইন মিস করে বোল্ড রনকি। প্রথম ওভারেই শেষ বলে বিদায় সৌম্য সরকারের। মন্থর উইকেটেও শুরুতেই ড্রাইভ করতে গিয়ে দিলেন ফিরতি ক্যাচ।

সেই শুরু। নিজের পরের তিন ওভারে নাসির নিয়েছেন তিন উইকেট। মাঝে শরিফউল্লাহ ফেরান সিকান্দার রাজাকে। চিটাগং উইকেট হারাতে থাকে নিয়মিত। মন্থর উইকেটে সোজা ব্যাটে খেলার বদলে তারা খেলেছে ক্রস ব্যাটে। খেলেছে উচ্চাভিলাষী শট। খেসারত দিতে হয়েছে সেটির।

চার ওভারের টানা স্পেলে নাসির শেষ করেন ৫ উইকেট নিয়ে। বাকি কাজ শেষ করেন শরিফউল্লাহ ও নাবিল সামাদ। সাতে নেমে ইরফান শুক্কুরের ১৫ রানই দলের সর্বোচ্চ। দুই অঙ্ক ছুঁয়েছেন আর কেবল দুই জন।

৩১ রানে ৫ উইকেট নাসিরের। ৩ ওভারে ৭ রানে ৩ উইকেট বাঁহাতি স্পিনার নাবিল সামাদের। ৪ ওভারে ২৩ রানে দুটি অফ স্পিনার শরিফউল্লাহর। নাসিরের মতো বাকি দুজনেরও ক্যারিয়ার সেরা বোলিং।

উইকেটের আচরণ বুঝে রান তাড়ায় কোনো তাড়াহুড়ো করেনি সিলেট সিক্সার্স। আন্দ্রে ফ্লেচার ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের উদ্বোধনী জুটিই জয় এনে দেয় দলকে।

৩৪ বলে ৩২ রানে অপরাজিত ফ্লেচার। এবারের আসরে প্রথমবার খেলতে নামা পাকিস্তানি উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান রিজওয়ান অপরাজিত ৩৩ বলে ৩৬ রানে।

এই জয়ে ১১ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট সিলেটের। শেষ ম্যাচে যাদ তারা জেতে এবং রংপুর যদি হেরে যায় শেষ দুই ম্যাচে, তাহলে সেরা চারে থাকবে সিলেট। তবে দুই ম্যাচের একটি জিতলেও সেরা চারে উঠবে রংপুর।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: