শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
যুক্তরাজ্যে অভিবাসী কবি শেলী ফেরদৌস-এর দু’টি কাব্যগ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠান  » «   বর্বরতার আলামত নষ্টে রোহিঙ্গা গ্রামে বুলডোজার  » «   ৫ দিনে সিরিয়ায় সরকারি বাহিনীর হামলায় নিহত ৪০৩  » «   শাহজালালে বিমান আটকে দিল মশা  » «   অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন প্রতিমন্ত্রী মান্নান  » «   ছড়া দখল করে বহুতল ভবন  » «   ১৫ ঘণ্টা পর সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিকঃ শ্রীমঙ্গলে ট্রেন দুর্ঘটনায় ২ তদন্ত কমিটি  » «   বিশ্বের বিস্ময়  » «   জিহাদুন নাফস  » «   জগন্নাথপুরে ছাত্রলীগের নতুন কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল ও সভা  » «   শিক্ষক প্রাইমারির, পরিচয় দেন বিসিএস ক্যাডার  » «   তাহিপুর সীমান্তে কয়লা এবং মদ জব্দ  » «   পুলিশি হেফাজত থেকে আসামির পলায়ন, ফের গ্রেফতার  » «   ‘একুশে বাংলা কিবোর্ড’ তৈরি করলো শাবিপ্রবি  » «   শাবিপ্রবিতে র‌্যাগিংয়ের নামে নির্যাতনঃ তদন্ত কমিটি গঠন  » «  

শ্রীমঙ্গলে অনুমোদন ছাড়াই শতবর্ষী দুটি বটবৃক্ষ কাটলো ফিনলে কর্তৃপক্ষ

শ্রীমঙ্গল সংবাদদাতা
শ্রীমঙ্গলে ফিনলে চা কোম্পানির আমরাইল চা বাগান কর্তৃপক্ষ অনুমোদন ছাড়াই কাটলো বিপন্ন প্রজাতির দুটি শতবর্ষী বিশালাকৃতির বটবৃক্ষ। পরে স্থানীয় বন বিভাগের নেতৃত্বে কেটে ফেলা গাছের কাঠ জব্দ করা হয়।
জানা যায়, শ্রীমঙ্গল উপজেলার আমরাইল চা বাগানের ৩ নং সেকশনে নতুন চা আবাদের নামে বিশালাকৃতির এ গাছ দুটিকে ক্ষতিগ্রস্ত বৃক্ষ বলে একটি সম্পূর্ণ এবং অপরটি অংশিক কেটে ফেলা হয়। গোপন সূত্রের ভিত্তিতে সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও)এর তাৎক্ষণিক পদক্ষেপে একটি বটগাছের একাংশ রক্ষা পায়।
গতকাল ৬ ডিসেম্বর বুধবার দুপুর তিনটায় সরেজমিন আমরাইল চা বাগানে গিয়ে দেখা যায়, বিশালাকৃতি দুটি শতবর্ষী গাছের মধ্যে একটি গাছ সম্পূর্ণ কেটে ফেলা হয়েছে এবং অবশিষ্ট বটগাছটির দুটো বিশাল ডালের মধ্যে একটি ডাল কর্তন করে ফেলা হয়েছে। তবে গাছের কাঠে কোনো ক্ষতের চিহ্ন দেখা যায়নি।
মৌলভীবাজার রেঞ্জের ফরেস্ট গার্ড মোহাম্মদ আলীর নেতৃত্বে চার জনের একটি দল এসে মাপজোক করে কাঠ জব্দ করে।
স্থানীয় শ্রমিক অমূল্য বুনার্জী(৮৫) বলেন, ছোট বেলা থেকে এই গাছগুলো দেখে আসছি। প্রথমে আমরা নিষেধ করেছিলাম। কিন্তু আমাদের কথা কে শুনবে বাবু। এ দুই বটগাছে ফল ধরলে নানা রকমের পাখি এখানে আসতো। গত মঙ্গলবার একটি বটগাছ ও বুধবার অপর বটগাছটির অর্ধেক অংশ কাটা হয় বলে জানান অমূল্য বুনার্জী।
আমরাইল চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক গোলাম ফারুক বাংলানিউজকে বলেন, গাছগুলোর ভেতরে ক্ষত ছিল; আর নতুন ট্রি-প্লান্টেশনের জন্য বাধ্য হয়েই কাটতে হলো। প্লান্টেশনে তো নতুন গাছ লাগানে হবে। এর ফলে পরিবেশের উপকার হবে।
সিলেট বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) আর.এস.এম মুনিরুল ইসলাম বলেন, আমাদের বন বিভাগের অনুমতি ছাড়াই আমরাইল চা বাগান কর্তৃপক্ষ অবৈধভাবে এই গাছগুলো কেটেছে। এই গাছ দুটো ধ্বংস করে পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্যের ক্ষতি সাধন করা হয়েছে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে আমি স্থানীয় বন বিভাগের লোকজনে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে ১৪ টুকরায় কর্তনকৃত ১৭৪ ঘনফুট (সিএফটি) কাঠ জব্দ করেছি।
বটসহ অন্যান্য ফলদবৃক্ষ কর্তন থেকে বিরত থেকে সেগুলোকে সংরক্ষণের জন্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা রয়েছে। আর শতবর্ষী বটগাছ তো কোনোক্রমেই কর্তৃন করা যাবে না বলে জানান সিলেটের ডিএফও আর.এস.এম মুনিরুল ইসলাম।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: