শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ১ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
ওসমানীনগরে প্রবাসীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি  » «   ইলিয়াস আলীর বাড়িতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা দুলু, মেয়র আরিফ  » «   দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী  » «   তিন মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিকদের জামিন  » «   একজন অভিজ্ঞ স্টাফ রিপোর্টার আবশ্যক  » «   গুজরাটে মোদী’র অগ্নিপরীক্ষা  » «   বিক্ষোভে উত্তাল ফিলিস্তিন ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে দুই ফিলিস্তিনি নিহত, আহত শতাধিক  » «   দেশের মানুষকে আন্ডারইস্টিমেট করবেন না: মির্জা ফখরুল  » «   ব্রিটিশ বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের ২০ বছর পূর্তি  » «   রেসিপিঃজলপাইয়ের টক-মিষ্টি আচার  » «   রসুন সবজি নাকি মসলা, জানতে আদালতে মামলা  » «   জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি বিশ্বজুড়ে প্রত্যাখ্যান  » «   পেট্রোলপাম্প ওনার্স এসোসিয়েশন সিলেটের বার্ষিক সাধারণ সভা  » «   ভারত থেকে কয়লা আমদানী পুনরায় চালু  » «   বড়লেখায় গৃহবধূ হত্যা: স্বামীসহ গ্রেফতার ২  » «  

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি বিশ্বজুড়ে প্রত্যাখ্যান

ডেস্ক রিপোর্ট
জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসাবে স্বীকৃতি দেওয়ার ঘোষণায় বিশ্বজুড়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি তীব্র নিন্দা ও সমালোচনার ঝড় বইছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওই ঘোষণাকে জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, সৌদি আরবের মতো ঘনিষ্ঠ বন্ধু দেশগুলোর পাশাপাশি খ্রিস্টানদের ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিসও প্রত্যাখ্যান করেছেন।
ট্রাম্পের ঘোষণার সমালোচনা করে জাতিসংঘ মহাসচিব অান্তনিও গুতেরেস বলেছেন, ‘এটা খুবই গভীর উদ্বেগের সময়। কারণ দ্বি-রাষ্ট্র সমাধান ছাড়া এর আর কোনো বিকল্প নেই।’ ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ট্রাম্পের দেওয়া ঘোষণায় ওই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতায় প্রভাব পড়বে।’
জেরুজালেম প্রশ্নে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানকে প্রত্যাখান করে ফ্রান্স বলেছে, ‘এ ধরনের একপাক্ষিক ঘোষণা ওই অঞ্চলের স্থিতিশীলতা নষ্ট হবে।’ যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম ঘনিষ্ঠ মিত্র ব্রিটেন তাদের প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছে, ফিলিস্তিনে শান্তি প্রতিষ্ঠায় যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্ত কোনো কাজে আসবে না এবং শেষ পর্যন্ত জেরুজালেমের ওপর ইসরায়েল ও ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্র উভয়েরই অধিকার রয়েছে।
অন্যদিকে জার্মানিও বলছে, দুই রাষ্ট্র সমাধানের মাধ্যমেই কেবল জেরুজালেমের ভাগ্য নির্ধারিত হতে পারে।
যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম ঘনিষ্ঠ আরব মিত্র সৌদি আরবও ট্রাম্পের সিদ্ধান্তকে ‘অযৌক্তিক ও দায়িত্বহীন’ বলে বর্ণনা করে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের এই পদক্ষেপ শান্তি প্রক্রিয়ার প্রচেষ্টাকে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করবে এবং এটি জেরুজালেম প্রশ্নে ঐতিহাসিকভাবে আমেরিকার নিরপেক্ষ অবস্থানের ব্যত্যয়।
ট্রাম্পের সমালোচনা ও উদ্বেগ প্রকাশ করে চীনের পক্ষ থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা এবং উত্তেজনা আসন্ন।
জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। তিনি বলেন, ‘এমন পরিস্থিতিতে আমি চুপ থাকতে পারি না। জেরুজালেম অত্যন্ত পবিত্র শহর। আমি উদ্বিগ্ন। আমি সবাইকে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় ইস্যুতে স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে জাতিসংঘের আইন মেনে চলার আহ্বান জানাই।
পোপ আরও বলেন, ‘আমি স্রষ্টার কাছে প্রার্থনা করি, স্রষ্টা তাদের জ্ঞান দিক তারা যেন সহিংসতা এড়াতে পারে।’
ফিলিস্তিনের মুক্তিকামী জনতার অন্যতম প্রধান মিত্র ইরান তার প্রতিক্রিয়ায় ট্রাম্পের নতুন পদক্ষেপকে ‘অসম্পূর্ণ এবং ব্যর্থ’ বলে বর্ণনা করেছে। অন্যদিকে ফিলিস্তিনের মিত্র তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান তার প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, ‘এই সিদ্ধান্ত পুরো অঞ্চলকেই ‘আগুনের বৃত্তে’ ছুড়ে ফেলবে।
এদিকে ট্রাম্পের ঘোষণা মানবেন না বলে স্পষ্ট জানিয়েছেন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। তিনি বলেন, ‘ট্রাম্প দ্বি-রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের নীতিকে ধ্বংস করে দিয়েছেন। এর মাধ্যমে তারা শান্তি প্রতিষ্ঠার মধ্যস্থাকারীর স্থান হারিয়েছে। স্পষ্টতই এটা ইসরায়েলের প্রতি একটি পুরস্কার। আর এই স্বীকৃতি যে ফিলিস্তিনের ভূমি ক্রমাগত দখল করতে ইসরায়েলকে উৎসাহিত করবে।’
ফিলিস্তিনের মুক্তিকামী সংগঠন হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া ৭ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার গাজায় দেওয়া এক ভাষণে ট্রাম্পের ঘোষণার জবাবে ইন্তিফাদার ডাক দিয়েছেন। ট্রাম্পের এই ঘোষণার মাধ্যমে বলেছেন, ‘আমরা জানি কীভাবে এর জবাব দিতে হয়। ট্রাম্পের ঘোষণায় এই সিদ্ধান্তে মার্কিন স্বার্থের জাহান্নামের দরজা খুলে গেল।’
এছা্ড়া জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীয় ঘোষণায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাশিয়া, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ।
এদিকে উদ্ভুদ পরিস্থিতিতে ৮ ডিসেম্বর শুক্রবার জরুরি বৈঠক আহ্বান করেছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ।
নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যের মধ্যে ৮টি দেশ এই বৈঠকের অনুরোধ জানিয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে যুক্তরাজ্য, ইতালি, ফ্রান্স, তুরস্ক। এসব দেশের দাবি, এই ঘোষণার মধ্য দিয়ে ট্রাম্প আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘনের পাশাপাশি জাতিসংঘের সনদও অমান্য করেছেন। তাছাড়া আগামী শনিবার এক জরুরি বৈঠকে বসার ঘোষণা দিয়েছে আরব বিশ্বের বৃহত্তম সংগঠন আরব লিগ।
ট্রাম্পের একতরফাভাবে দেওয়া ঘোষণাকে অগ্রহণযোগ্য বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ৭ ডিসেম্বর ঢাকায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এমন ঘোষণা ইসলামিক ওয়ার্ল্ডে কারও কাছে গ্রহণযোগ্য না। এক্ষেত্রে জাতিসংঘের রেজুলেশন রয়েছে। রেজুলেশন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। কিন্তু জাতিসংঘের রেজুলেশন অগ্রাহ্য করেছে যুক্তরাষ্ট্র।’
একতরফাভাবে কিছু করা মানে অশান্তি সৃষ্টি করা মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, ফিলিস্তিনের অধিকার আদায়ে মুসলিম বিশ্বের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
তবে ট্রাম্পের এই ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু একে ‘ঐতিহাসিক দিন’ বলে মন্তব্য করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: