সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব নিলেন আরিফুল হক চৌধুরী  » «   সিম রেজিস্ট্রেশনে আর কাগজ-কলম লাগবে না  » «   টাইফুন ‘জেবি’র আঘাতে লণ্ডভণ্ড জাপান, নিহত ৯  » «   রোনালদোর বেতন তিন গুণ বেশি!  » «   দ্বিতীয়বার সিলেটের মেয়র হিসেবে শপথ নিলেন আরিফ  » «   যে নামগুলো পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করবেন না  » «   ট্রাম্পের ‘প্যান্ট’ খুলে দিল যে বই  » «   নিরাপদ সড়ক আন্দোলন: ঘটনাই ঘটেনি, মামলা করে রেখেছে পুলিশ  » «   ‘অ্যাওয়ে গোল’ বাতিল করো, দাবি মরিনহো-ওয়েঙ্গারদের  » «   শহিদুলকে প্রথম শ্রেণির বন্দীর সুবিধা দিতে নির্দেশ  » «   আরপিও সংশোধন নিয়ে নির্বিকার নির্বাচন কমিশন  » «   মাহাথিরের রসিকতায় শ্রোতাদের মধ্যে হাসির রোল!  » «   দেশের বাইরে রান করাটা চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখি : মুশফিক  » «   দুর্দান্ত জয়ে সিপিএলের শীর্ষে মাহমুদুল্লাহরা  » «   খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে বিএনপির ২ দিনের কর্মসূচি  » «  

স্কুলের শিশুরা পাবে দুপুরের খাবার

সংলাপ ডেস্ক
এবার সারা দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ‘মিড ডে মিল’ এর দুপুরের খাবার নিশ্চিত করতে উদ্যোগ নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচির মাধ্যমে এ কার্যক্রম শুরু করা হচ্ছে। স্কুলগামী শিশুদের বাবা-মা এবং শিক্ষকরাই এতে মূখ্য ভূমিকা পালন করবেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এ বিষয়টি জানিয়েছেন।

মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বর্তমানে ৯৩টি উপজেলায় ৩২ লাখ শিশু উচ্চ পুষ্টিগুণ সম্পন্ন বিস্কুট পায়। এ কর্মসূচি দাতা সংস্থার মাধ্যমে পরিচালিত হলেও কোথাও কোথায় অভিভাবকেরা নিজেরাই উদ্যোগ নিয়ে চালু করেছে ‘মিড ডে মিল’ কর্মসূচি। এতে দুপুরে খুদে শিশুদের খাবার নিশ্চিত হচ্ছে। তবে বেশিরভাগই রয়ে যাচ্ছে কর্মসূচির বাইরে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী জানিয়েছেন, এরই মধ্যে সারা দেশের প্রধান শিক্ষক এবং অফিসারদের বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের মধ্যে সমস্ত স্কুলের বাচ্চাদের তার বাবা-মায়েরা খাবার দেবে। সরকারের কোনো খাবার দিতে হবে না। সরকারের খাবার আজ আছে, আরেক সরকারে এসে বলবে দেবে না। বিশ্বব্যাংকও হয়তো একদিন দেবে না।

শিক্ষক ও অভিভাবকদের সক্ষমতা রয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, তাদের বলবো তোমার বাচ্চার দুপুরের খাবারটা টিফিন বাটিতে করে স্কুলে পাঠিয়ে দাও। বাচ্চারা যেন অভুক্ত না থাকে। টিফিন বাটির সঙ্গে ছোট পানির বোতল থাকবে, বাবা-মায়েরা তা নিশ্চিত করবেন।

শিশুদের পাশাপাশি শিক্ষকরাও স্কুলে খাবার নিয়ে আসবেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা একসঙ্গে খেলে সবাই উৎসাহিত হবে।

মন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকায় ফুলবাড়ি ও পার্বতীপুরের অভিভাবকদের দিয়ে এই কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে জানিয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী বলেন, প্রথমে একটি স্কুলে মায়েরা শুরু করে। পরবর্তীতে থানা শিক্ষা কর্মকর্তাকে সব থানায় নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেওয়ার পর বাস্তবায়ন হচ্ছে দু’টি থানায়।

পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য জেলায় জেলায় গিয়ে মন্ত্রী নিজেই উদ্বুদ্ধ করছেন জানিয়ে তিনি বলেন, বিভাগীয় পর্যায়ে শিক্ষক ও শিক্ষা কর্মকর্তাদের নিয়ে সমাবেশের পর কেন্দ্রীয়ভাবে একটি সমাবেশ করা হবে।

‘জোর করে নয়, উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে সারা দেশে এটি বাস্তবায়ন করতে চাই।’

স্কুলে শিক্ষকেরা গ্রামে-শহরে দলবেঁধে মায়েদের কাছে গিয়ে দুপুরের খাবার স্কুলে পাঠানোর বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করলে এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন হবে বলে আশা করছেন মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: