মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব নিলেন আরিফুল হক চৌধুরী  » «   সিম রেজিস্ট্রেশনে আর কাগজ-কলম লাগবে না  » «   টাইফুন ‘জেবি’র আঘাতে লণ্ডভণ্ড জাপান, নিহত ৯  » «   রোনালদোর বেতন তিন গুণ বেশি!  » «   দ্বিতীয়বার সিলেটের মেয়র হিসেবে শপথ নিলেন আরিফ  » «   যে নামগুলো পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করবেন না  » «   ট্রাম্পের ‘প্যান্ট’ খুলে দিল যে বই  » «   নিরাপদ সড়ক আন্দোলন: ঘটনাই ঘটেনি, মামলা করে রেখেছে পুলিশ  » «   ‘অ্যাওয়ে গোল’ বাতিল করো, দাবি মরিনহো-ওয়েঙ্গারদের  » «   শহিদুলকে প্রথম শ্রেণির বন্দীর সুবিধা দিতে নির্দেশ  » «   আরপিও সংশোধন নিয়ে নির্বিকার নির্বাচন কমিশন  » «   মাহাথিরের রসিকতায় শ্রোতাদের মধ্যে হাসির রোল!  » «   দেশের বাইরে রান করাটা চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখি : মুশফিক  » «   দুর্দান্ত জয়ে সিপিএলের শীর্ষে মাহমুদুল্লাহরা  » «   খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে বিএনপির ২ দিনের কর্মসূচি  » «  

সুনামগঞ্জ পৌর মেয়র জগলুল আর নেই

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতাঃ
সুনামগঞ্জ পৌরসভার দু’বারের নির্বাচিত মেয়র ও আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য আইয়ুব বখত জগলুল আর নেই। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় রাজধানী ঢাকার বিআরবি হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি … রাজিউন)। বেলা সাড়ে ৩টায় হেলিকপ্টার যোগে ঢাকা থেকে তার মরদেহ সুনামগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হয়। আজ শুক্রবার দুপুর ২টায় সুনামগঞ্জ স্টেডিয়ামে তার জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।
আইয়ুব বখত জগলুলের মৃত্যুর খবর সুনামগঞ্জ পৌর শহরে পৌঁছলে নাগরিকরা শোকাচ্ছন্ন হয়ে পড়েন। তার রাজনৈতিক শুভাকাঙ্ক্ষী, বন্ধুজনসহ শহরের দলমত নির্বিশেষে সাধারণ মানুষ তার আরপিননগরস্থ বাসভবনে ছুটে যান। তারা শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তার কর্মস্থল সুনামগঞ্জ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা শোকে বিহ্বল হয়ে পড়েন। মেয়র জগলুলের মৃত্যুতে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক-রাজনৈতিক সংগঠন শোক প্রকাশ করেছে। মেয়রের গাড়ি চালক প্রশান্ত জানান, বৃহস্পতিবার সকালে মেয়র জগলুলের বুকে ব্যথা অনুভব করলে প্রথমে তাকে ঢাকার ইসলামী
হাসপাতালে ইসিজি করানো হয়। পরে গাড়িতে করে ফেরার পথে তার অবস্থার অবনতি হলে বিআরবি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৯ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন।
২০১১ সালে তিনি সুনামগঞ্জ পৌরসভার প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন। দ্বিতীয় মেয়াদে ২০১৫ সালে তিনি পুনরায় মেয়র নির্বাচিত হন। সুনামগঞ্জ শহরের দৃষ্টিনন্দন উন্নয়নের জন্য সাধারণ মানুষ তাকে চিরদিন মনে রাখবে।
আইয়ুব বখত জগলুলের বাল্যবন্ধু এটিএম মিসবাহ বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিলেট সমাবেশ থেকেই রাজনৈতিক ও পৌরসভার উন্নয়নমূলক কাজের জন্য জগলুল ঢাকা চলে যান। ঢাকার কমলাপুরে আল-ফারুক আবাসিক হোটেলে অবস্থান করেন। বৃহস্পতিবার ভোরে বুকে ব্যথা নিয়ে তিনি ঢাকার ইসলামিয়া হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যান। সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্যত্র নেয়ার পরামর্শ দেন। ঢাকার বিআরবি হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু হয়।
উল্লেখ্য, আইয়ুব বখত জগলুল সত্তরের দশকে ছাত্রলীগের রাজনীতি দিয়ে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। তার পিতা ভাষাসৈনিক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর হোসেন বখত ছিলেন সুনামগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক। আয়ুব বখত জগলুল বিভিন্ন সময়ে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের নির্বাচিত ভিপি ও জিএসের দায়িত্ব পালন করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: