শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
মিয়ানমারে ৩০ বিঘা জমির মালিক, বাংলাদেশে শূন্য হস্ত  » «   বাংলাদেশ বিমানে লাগেজ ভেঙে ডলার চুরি!  » «   যুক্তরাজ্যে অভিবাসী কবি শেলী ফেরদৌস-এর দু’টি কাব্যগ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠান  » «   বর্বরতার আলামত নষ্টে রোহিঙ্গা গ্রামে বুলডোজার  » «   ৫ দিনে সিরিয়ায় সরকারি বাহিনীর হামলায় নিহত ৪০৩  » «   শাহজালালে বিমান আটকে দিল মশা  » «   অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন প্রতিমন্ত্রী মান্নান  » «   ছড়া দখল করে বহুতল ভবন  » «   ১৫ ঘণ্টা পর সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিকঃ শ্রীমঙ্গলে ট্রেন দুর্ঘটনায় ২ তদন্ত কমিটি  » «   বিশ্বের বিস্ময়  » «   জিহাদুন নাফস  » «   জগন্নাথপুরে ছাত্রলীগের নতুন কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল ও সভা  » «   শিক্ষক প্রাইমারির, পরিচয় দেন বিসিএস ক্যাডার  » «   তাহিপুর সীমান্তে কয়লা এবং মদ জব্দ  » «   পুলিশি হেফাজত থেকে আসামির পলায়ন, ফের গ্রেফতার  » «  

গ্যাস জটিলতায় ফেঞ্চুগঞ্জে শাহজালাল সার কারখানার উৎপাদন বন্ধ

সিলেট সংলাপ ডেস্কঃ
গ্যাস সরবরাহ জটিলতায় সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে প্রতিষ্ঠিত শাহজালাল সার কারখানার উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে দৈনিক ২ কোটি ১৭ লাখ টাকার লোকসানের মুখে পড়েছে দেশের সবচেয়ে বড় সার কারখানাটির।
মঙ্গলবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টা ২০ মিনিট থেকে কারখানার উৎপাদন বন্ধ করে দেওয়া হয়। কারখানার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে।
কারখানার একটি সূত্র জানায়, সংস্কার কাজের জন্য সোমবার (০৫ জানুয়ারি) কারখানার উৎপাদন বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু মঙ্গলবার জালালাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেমস লিমিটেড গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেয়।
মঙ্গলবার সকালে সার উৎপাদনে যাওয়ার কথা থাকলেও গ্যাস সরবরাহ জটিলতায় কারখানা চালু করা যায়নি।
শাহজালাল সার কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. মনিরুল হক বলেন, আমাদের কোনো সমস্যা নেই। গ্যাস সরবরাহ পেলে এই মুহূর্ত থেকেই উৎপাদনে যেতে পারবো।
তিনি বলেন, ‘গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সকাল ১১টা ২০ মিনিট থেকে কারখানার উৎপাদন বন্ধ আছে। বিষয়টি নিয়ে জালালাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিসন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম লিমিটেডের সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা জানিয়েছেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করা হয়েছে।’
প্রায় ১ হাজার ৭৬০ মেট্রিক টন সার উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন এই কারখানা থেকে বর্তমানে দৈনিক ১৫ থেকে সাড়ে ১৫শ’ মেট্রিক টন সার উৎপাদন হচ্ছে উল্লেখ করে এই শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, সরকারি হিসাব অনুযায়ী প্রতি মেট্রিক টন ইউরিয়া ১৪ হাজার টাকা টন বিক্রি করা হয়ে থাকে।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে জালালাবাদ গ্যাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ খালেকুজ্জামান বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বন্ধ করছি। ওখানে এখন সীমিত আকারে গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে। সার উৎপাদনের বাইরে ওখানে কিছু ডিমান্ড আছে। ওই সরবরাহ রেখে বাকিটা বন্ধ করা হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১২ সালের ২৪ জুন শাহজালাল সার কারখানার নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ৫ হাজার ৪০৯ কোটি টাকা ব্যয়ে চীন ও বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে নির্মিত কারখানায় প্রতিদিন ১ হাজার ৭৬০ টন ও প্রতিদিন ১ হাজার টন অ্যামোনিয়া সার উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। বর্তমানে কেবল ইউরিয়া সার উৎপাদন হচ্ছে।
২০১৫ সালের আগস্টে পুরোদমে উৎপাদন শুরুর কথা থাকলেও ওই বছরের সেপ্টেম্বরে পরীক্ষামূলক উৎপাদনে যায় কারখানাটি।
উৎপাদন শুরুর দুই বছরের মধ্যেই বিভিন্ন জটিলতায় কারখানাটির উৎপাদন বারবার বন্ধ হয়ে যায়। সর্বশেষ মঙ্গলবার গ্যাস সরবরাহ জটিলতায় ফের বন্ধ হয়ে যায় শাহজালাল সার কারখানার উৎপাদন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: