সিলেট সংলাপ | SYLHETSANGLAP.COMমাথায় হেলমেট, অস্ত্র হাতে এরা কারা? | সিলেট সংলাপ | SYLHETSANGLAP.COM

রবিবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
মৌলভীবাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত  » «   সিলেটে চামড়া সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা লক্ষাধিক পিস  » «   ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসকের আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার  » «   পেট পরিষ্কার রাখতে যা খাবেন  » «   আমূল পরিবর্তন আসছে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায়  » «   ক্রেতা আনাগোনা কম সিলেটের পশুর হাটে!  » «   দক্ষিণ সুরমায় বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৩০  » «   বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স  » «   পরিকল্পিত নগর গড়ার অঙ্গীকার সিসিক মেয়র প্রার্থীদের  » «   প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া  » «   বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্স  » «   উপহারের টাকায় কামরান, বেতনের টাকায় আরিফের নির্বাচনী ব্যয়  » «   ব্রাজিলকে কাঁদিয়ে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে বেলজিয়াম  » «   উরুগুয়েকে হারিয়ে সেমিফাইনালে ফ্রান্স  » «   টাইব্রেকারে ইতিহাস গড়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ড  » «  

মাথায় হেলমেট, অস্ত্র হাতে এরা কারা?

সিলেট সংলাপ ডেস্কঃ
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার রায়ের পর বৃহস্পতিবার বিকেলে সিলেটে ছাত্রলীগ ও ছাত্রদল নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।
সংঘর্ষের সময় উভয়পক্ষে গুলি বিনিময়ে অন্তত দুইজন গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। এ সময় দুই যুবককে প্রকাশ্যে অস্ত্র উঁচিয়ে অন্য পক্ষকে গুলি করতে দেখা যায়। তবে মাথায় হেলমেট পরা থাকায় তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
একটি সূত্র জানিয়েছে, অস্ত্রধারী এক যুবক ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তার নাম মুনিম আহমদ। এ সময় তার হাতে একটি একনলা বন্দুক দেখা গেছে। এ অস্ত্রটি তার নিজের নামে লাইসেন্স করা। তবে অপর যুবকের পরিচয় জানাতে পারনি ওই সূত্র।
ছাত্রদল কর্মীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ চলাকালে তারা এ অস্ত্র নিয়ে মাঠে নামেন। বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটা থেকে তিনটা পর্যন্ত এ সংঘর্ষ চলে। সংঘর্ষে দুইজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে গুলিবিদ্ধ একজন হচ্ছেন জেলা ছাত্রদল নেতা সৈয়দ মোস্তফা কামরুল। অন্যজনের নাম জানা যায়নি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রায়কে কেন্দ্র করে সকাল থেকে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ সিলেট জেলা পরিষদে অবস্থান নেয়। অন্যদিকে আদালতপাড়ায় অবস্থান নেন বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।
রায় ঘোষণার পরপরই বেলা আড়াইটার দিকে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। একপক্ষ অন্যপক্ষের বিরুদ্ধে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে।
এ সময় গুলি বিনিময়ও হয় পাল্টাপাল্টি। দুইজন গুলিবিদ্ধ হন। এর মধ্যে একজনের পরিচয় মিলেছে। তিনি জেলা ছাত্রদলের কর্মী মোস্তফা কামরুল। তার মাথায় গুলি লেগেছে। তিনি একটি বেসরকারি ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। অন্যরা সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেলসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আহত হয়েছেন পুলিশের এক সদস্য।
এদিকে, খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়ার প্রতিবাদ জানিয়ে কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা সামসুজ্জামানের নেতৃত্বে একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিল নিয়ে নগরীর হকার পয়েন্ট এলাকায় বেশ কয়েকটি দোকান ভাঙচুর করে তারা। এ সময় তাদের সঙ্গেও আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়।
পুলিশ সদস্যরা বেশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি শান্ত করে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। রাজপথে পুলিশ টহল দিচ্ছেন। এছাড়া নগরের বেশ কয়েকটি এলাকায় সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও মাইক্রোবাস ভাঙচুর করা হয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট কোতোয়ালি থানা পুলিশের ওসি গৌছুল হোসেন বলেন, কারা অস্ত্র ব্যবহার করেছে তাদের চিহ্নিত করতে তদন্ত করছে পুলিশ।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: