মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
সিম রেজিস্ট্রেশনে আর কাগজ-কলম লাগবে না  » «   টাইফুন ‘জেবি’র আঘাতে লণ্ডভণ্ড জাপান, নিহত ৯  » «   রোনালদোর বেতন তিন গুণ বেশি!  » «   দ্বিতীয়বার সিলেটের মেয়র হিসেবে শপথ নিলেন আরিফ  » «   যে নামগুলো পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করবেন না  » «   ট্রাম্পের ‘প্যান্ট’ খুলে দিল যে বই  » «   নিরাপদ সড়ক আন্দোলন: ঘটনাই ঘটেনি, মামলা করে রেখেছে পুলিশ  » «   ‘অ্যাওয়ে গোল’ বাতিল করো, দাবি মরিনহো-ওয়েঙ্গারদের  » «   শহিদুলকে প্রথম শ্রেণির বন্দীর সুবিধা দিতে নির্দেশ  » «   আরপিও সংশোধন নিয়ে নির্বিকার নির্বাচন কমিশন  » «   মাহাথিরের রসিকতায় শ্রোতাদের মধ্যে হাসির রোল!  » «   দেশের বাইরে রান করাটা চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখি : মুশফিক  » «   দুর্দান্ত জয়ে সিপিএলের শীর্ষে মাহমুদুল্লাহরা  » «   খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে বিএনপির ২ দিনের কর্মসূচি  » «   আদালতকে খালেদা জিয়া : ‘আমার অবস্থা খুবই খারাপ’  » «  

ছড়া দখল করে বহুতল ভবন

সিলেট সংলাপ ডেস্কঃ
সিলেটে নগরের পশ্চিম বাগবাড়ি এলাকায় সুরমা আবাসিক প্রকল্পে ছড়া দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে বহুতল ভবন। ছড়াখেকোদের কবলে পড়ে দখল হয়ে গেছে প্রায় ৪০ ফুট প্রশস্ত মালনিছড়া। ছড়া দখল ও ভরাট করে সুরমা আবাসিক প্রকল্পে দশ ও এগারো তলা দুটি ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, পাল্টে দেয়া হয়েছে ছড়ার গতিপথও।
তবে অভিযুক্ত সুরমা আবাসিক প্রকল্পের পরিচালক আহমেদ কবির চৌধুরী বাবলু ছড়ার গতিপথ পরিবর্তনের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, একসময় ছড়ার মালিকানা কানিশাইল মসজিদ কর্তৃপক্ষ দাবি করেছিল। তখন মসজিদের পক্ষে আলাউদ্দিন, কুদ্দুস মিয়াসহ অন্যদের সঙ্গে আলোচনায় প্রায় ২০ লাখ টাকা দিয়ে ছড়ার জায়গা বিনিময় করি। ওই সময় আবাসিক প্রকল্পের দক্ষিণ দিকে প্রায় ৩০ ফুট ছড়া খনন করে দেয়া হয়। পরবর্তীতে স্থানীয়রা ছড়া দখল করায় সেটি এখন ছোট আকার পেয়েছে।
এদিকে ছড়া দখল করে গড়ে ওঠা বহুতল ভবন ভেঙে উদ্ধার অভিযানে নেমেছেন সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। বৃহস্পতিবার দিনভর নগরের মদিনা মার্কেট থেকে লামাবাজার সরষপুর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ভাঙা হয় বেশ কয়েকটি ভবন।
সিলেট মহানগরের অন্যতম প্রধান সমস্যা জলাবদ্ধতা। অল্প বৃষ্টিতেই পানিতে তলিয়ে যায় ক্রমবর্ধমান এ নগর। এর অন্যতম কারণ ছড়া-খাল দখল ও ভরাট হয়ে যাওয়া। আগামী বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে নগরবাসী যেন মুক্ত থাকেন সেজন্য সম্প্রতি ছড়া-খাল দখলমুক্ত করার ঘোষণা দেন সিসিক মেয়র।
জানা যায়, সিলেট নগরের ভেতর দিয়ে প্রবাহমান ছড়াগুলোর অন্যতম একটি মালনিছড়া। প্রায় ৪০ ফুট প্রশস্তের এই ছড়াটি নগরের পশ্চিম বাগবাড়ি এলাকায় এসে পরিণত হয়েছে সরু নালায়।
স্থানীয়রা বলছেন, এই মালনীছড়া দিয়ে একসময় বড় নৌকা চলাচল করত। কিন্তু সুরমা আবাসিক প্রকল্প নামের একটি হাউসিং প্রতিষ্ঠান ছড়া ভরাট করে গড়ে তুলেছে একাধিক বহুতল ভবন। একইসঙ্গে ছড়ার গতিপথ পরিবর্তন করে সরিয়ে দেয়া হয়েছে ব্যক্তি মালিকানাধীন জায়গার দিকে।
দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয়দের দাবি ছিল, ১৯৫৬ সালের নকশা অনুযায়ী ছড়া উদ্ধার করা হোক। তাদের দাবির প্রেক্ষিতে সম্প্রতি ছড়া পরিমাপ করতে গিয়ে হতভম্ব হন সিসিকের কর্মকর্তারা। ছড়া দখল ও ভরাট করে ১০ ও ১১ তলা দুটি ভবন নির্মাণের সত্যতা পান তারা। মাস খানেক আগে সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সুরমা আবাসিম প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের যৌথ সার্ভে করার প্রস্তাব দেন। তবে সাড়া না পেয়ে গত বুধবার সার্ভেয়ারসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে ১৯৫৬ সালের নকশা অনুসারে ছড়া চিহ্নিত করেন মেয়র।
তাতে দেখা যায়, পশ্চিম বাগবাড়ি থেকে সুরমা আবাসিক প্রকল্পের যে রাস্তা তৈরি করা হয়েছে, সেটি ছড়ার উপর। এছাড়া একটু এগিয়ে ছড়া যেখানে ডানদিকে মোড় নিয়েছে, সেখানে ওই ভবন দুটি নির্মাণ করা হয়েছে। সিসিক কর্তৃপক্ষ লাল দাগ দিয়ে ছড়ার জায়গা চিহ্নিত করেছে।
এ বিষয়ে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, লাল দাগ দিয়ে ছড়ার জায়গা চিহ্নিত করে স্বেচ্ছায় স্থাপনা সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। স্বেচ্ছায় সরিয়ে না নিলে আইন অনুসারে অবৈধ স্থাপনা ভাঙা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: