বুধবার, ১৮ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
দক্ষিণ সুরমায় বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৩০  » «   বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স  » «   পরিকল্পিত নগর গড়ার অঙ্গীকার সিসিক মেয়র প্রার্থীদের  » «   প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া  » «   বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্স  » «   উপহারের টাকায় কামরান, বেতনের টাকায় আরিফের নির্বাচনী ব্যয়  » «   ব্রাজিলকে কাঁদিয়ে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে বেলজিয়াম  » «   উরুগুয়েকে হারিয়ে সেমিফাইনালে ফ্রান্স  » «   টাইব্রেকারে ইতিহাস গড়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ড  » «   সিসিক নির্বাচনঃ সবচেয়ে সম্পদশালী মেয়রপ্রার্থী কামরান  » «   সুইজারল্যান্ডকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে সুইডেন  » «   সিলেট সিটি নির্বাচন: প্রচার ১০ থেকে ২৮ জুলাই  » «   সিসিক নির্বাচন: বাছাইয়ে ছিটকে পড়লেন ২০ প্রার্থী  » «   নেইমার ম্যাজিকে মেক্সিকোকে হারিয়ে কোয়ার্টারে ব্রাজিল  » «   টাইব্রেকারে রাশিয়ার কাছে হেরে বিদায় স্পেনের  » «  

নগরীতে মা-ছেলে খুন : ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

স্টাফ রিপোর্টারঃ
সিলেট নগরের মিরাবাজারের খারপাড়া এলাকায় মা-ছেলে খুনের ঘটনায় মামলা হয়েছে। রোববার রাতে সিলেট মহানগরের কোতোয়ালি থানায় অজ্ঞাতনামা ২৬ জনকে আসামি করে এ মামলা দায়ের করেন নিহত রোকেয়া বেগমের ভাই জাকির হোসেন।
মামলার এজাহারে কারও নামোল্লেখ করা না হলেও, গত কয়েকদিন আগে রোকেয়ার বাসায় হামলা, মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়া এবং তাকে মারধরের ঘটনা উল্লেখ করা হয়েছে। ওই হামলা এবং মারধরের ঘটনা উল্লেখ করে এর সঙ্গে জড়িত শিপলু, তানিম ও সুমনের নাম উল্লেখ করে ঘটনার সঙ্গে তাদের সংশ্লিষ্টতা থাকতে পারে এজাহারে বলা হয়েছে।
মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (মিডিয়া) মুহম্মদ আব্দুল ওয়াহাব বলেন, জোড়া খুনের ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামিদের চিহ্নিত করে গ্রেফতারে পুলিশ কাজ করছে।
উল্লেখ্য, রোকেয়া বেগম তার ছেলে রবিউল ইসলাম রোকন (১৭) এবং মেয়ে রাইসাকে (৫) নিয়ে মিরাবাজারের মিতালী আবাসিক এলাকার ১৫/জে নম্বর বাসায় গত একবছর ধরে ভাড়া থাকতেন। তাদের সঙ্গে বাসায় একটি কাজের মেয়েও থাকত। গত শুক্রবার বিকেলে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রোকেয়াদের সর্বশেষ যোগাযোগ হয়। এরপর থেকে তাদের মোবাইল বন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল।
রোববার সকালে তাদের খোঁজ নিতে মিরাবাজারস্থ বাসায় আসেন নিহতের ভাই জাকির হোসেন। বাসায় এসে ভেতর থেকে তিনি তাদের দরজা বন্ধ দেখতে পান। অনেকক্ষণ ডাকাডাকির পরও কেউ দরজা না খোলায় তিনি বাড়ির মালিককে খবর দেন।
পরে বাড়ির মালিক ঘটনা শুনে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে ঘরে প্রবেশ করে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে। এ সময় ঘরের মধ্যে কান্নারত অবস্থায় পাঁচ বছর বয়সী মেয়েকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে কাজের মেয়েকে বাসায় পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook1Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: