বুধবার, ১৮ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
দক্ষিণ সুরমায় বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৩০  » «   বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স  » «   পরিকল্পিত নগর গড়ার অঙ্গীকার সিসিক মেয়র প্রার্থীদের  » «   প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া  » «   বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্স  » «   উপহারের টাকায় কামরান, বেতনের টাকায় আরিফের নির্বাচনী ব্যয়  » «   ব্রাজিলকে কাঁদিয়ে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে বেলজিয়াম  » «   উরুগুয়েকে হারিয়ে সেমিফাইনালে ফ্রান্স  » «   টাইব্রেকারে ইতিহাস গড়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ড  » «   সিসিক নির্বাচনঃ সবচেয়ে সম্পদশালী মেয়রপ্রার্থী কামরান  » «   সুইজারল্যান্ডকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে সুইডেন  » «   সিলেট সিটি নির্বাচন: প্রচার ১০ থেকে ২৮ জুলাই  » «   সিসিক নির্বাচন: বাছাইয়ে ছিটকে পড়লেন ২০ প্রার্থী  » «   নেইমার ম্যাজিকে মেক্সিকোকে হারিয়ে কোয়ার্টারে ব্রাজিল  » «   টাইব্রেকারে রাশিয়ার কাছে হেরে বিদায় স্পেনের  » «  

বিউটি হত্যাঃ এসআই জাকিরের ‘দায়িত্বে অবহেলা’ প্রমাণিত

হবিগঞ্জ সংবাদদাতাঃ
হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে আলোচিত কিশোরী বিউটি হত্যার ঘটনায় এসআই জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে এ সংক্রান্ত তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দিয়েছে। এতে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।
তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসম শামছুর রহমান ভূঁইয়া এর সত্যতা স্বীকার করে জানান, তার বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। তাই বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। এছাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিছুর রহমানকে দায়িত্ব পালনে আরও দায়িত্ববান হওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।
প্রকাশ, ২১ জানুয়ারি প্রথম দফায় শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ব্রাহ্মণডোরা গ্রামের সায়েদ আলীর মেয়ে বিউটি আক্তারকে অপহরণের পর ধর্ষণ করা হয়। এ ঘটনায় ৪ মার্চ বিউটির বাবা সায়েদ আলী বাদী হয়ে একই গ্রামের বাবুল মিয়া ও তার মা ইউপি সদস্য কলম চান বিবির বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেন। এরপরও পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। পরবর্তীতে ১৬ মার্চ রাতে বিউটি লাখাই উপজেলা গুণিপুর গ্রামে নানার বাড়ি থেকে অপহৃত হয়।
১৭ মার্চ সকালে শায়েস্তগঞ্জের হাওরে তার মরদেহ পাওয়া যায়। উক্ত ঘটনায় সায়েদ আলী বাদী হয়ে পূণরায় উল্লেখিত আসামিদের বিরুদ্ধে শায়েস্তাগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাগুলোর তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন এসআই জাকির হোসেন। তদন্তে তিনি গাফিলতি করেন বলে অভিযোগ উঠলে ২৯ মার্চ পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা তা তদন্তে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। কমিটির প্রধান করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসম শামছুর রহমান ভূঁইয়াকে। কমিটিকে ৩ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য বলা হয়। তদন্ত শেষে কমিটি মঙ্গলবার বিকেলে প্রতিবেদন জমা দেয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
Share on Facebook2Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by: